প্রার্থী বদলের দাবীতে বিজেপি কর্মীদের প্রবল বিক্ষোভে ভাংচুর হল হুগলি জেলা কার্যালয় - breakinggram

Breaking

Monday, 15 March 2021

প্রার্থী বদলের দাবীতে বিজেপি কর্মীদের প্রবল বিক্ষোভে ভাংচুর হল হুগলি জেলা কার্যালয়


নিজস্ব প্রতিনিধি, হুগলি : বিজেপির প্রার্থীদের নিয়ে সকাল থেকেই হুগলির বিভিন্ন বিধানসভায় ক্ষোভের আগুন জ্বলছিল। সেই আগুনেই পুড়ল বিজেপির হুগলি সাংগঠনিক জেলা কার্যালয়। 

সপ্তগ্রামে প্রার্থী করা তো দুর কি বাত। সপ্তগ্রামের সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা দেবব্রত বিশ্বাসকে অবিলম্বে দল থেকে বহিস্কার করার দাবীতে ধুমধুমার পরিস্থিতি তৈরি হল বিজেপির হুগলি জেলা কার্যালয়ে।

বিজেপির কর্মী সমর্থকদের ধহ্যের সীমা ছাড়াতেই ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশে বিজেপির পার্টি অফিস ভাংচুর করল দলীয় নেতা কর্মীরা। সোমবার সন্ধ্যায় এই ঘটনায় উত্তাল হয়ে উঠল বিজেপির হুগলি সাংগঠনিক জেলার কার্যালয়। 

এদিন সকাল থেকেই সিঙ্গুরের প্রার্থীর বিরুদ্ধে সরব হয় সিঙ্গুরের নেতা কর্মীরা। এরপর জেলা কার্যালয়ে পৌছে বিজেপির নেতা কর্মীরা দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। বিকেলের দিকে বিজেপির দলীয় অফিসে তালা মারেন কর্মী সমর্থকরা। এরপর সপ্তগ্রামে বিজেপির নেতা কর্মীরা সাংসদ লকেট চ্যাটার্জীর সঙ্গে মাফিয়া যোগের অভিযোগ তুলে জেলা অফিসের সামনে ক্ষোভে ফেটে পড়েন। সন্ধ্যে বেলায় সেই ক্ষোভের বিস্ফোরণ হয়।

বিজেপির একাধিক নেতা কর্মীদের অভিযোগ, সাংসদ লকেট চ্যাটার্জী সপ্তগ্রামের এক জমি মাফিয়ার সঙ্গে যোগ সাজস করে দলে যোগদান করিয়ে বিধানসভায় তাকে টিকিট দিতে চাইছেন। এই অভিযোগে উত্তাল হয়ে ওঠে সপ্তগ্রাম। এরপর বিজেপির নেতা কর্মীরা বিজেপির জেলা কার্যালয়ে এসে প্রবল বিক্ষোভ দেখান। তারা লকেটের নামে বিভিন্ন রকম শ্লোগান তুলে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। এই ঘটনায় বেগতিক বুঝে জেলা নেতৃত্ব অনেকেই জেলা অফিসে প্রবেশ করার সাহস দেখানি বলে অভিযোগ। যদিও বিকেলের দিকে একে একে জেলা নেতৃত্ব কার্যালয়ে প্রবেশ করতেই ধহ্যের বাঁধ ভাঙে কর্মীদের। শুরু হয় ব্যাপক গোলমাল। এরপরই ভাংচুর শুরু হয় জেলা অফিসে। যদিও বিজেপির নেতা কর্মীরা এই ঘটনায় অভিযোগের আঙুল তোলেন তৃণমূলের দিকে। তৃণমূলের নেতারা এই ঘটনার কথা অস্বীকার করে বলেন, বিজেপির পার্টি অফিসে আমাদের কর্মীরা ভাংচুর কেন করতে যাবে। এই ঘটনা ওদের দলের অর্ন্তরকলহ।


পাশাপাশি এদিনই চন্দননগরে প্রার্থী বদলের দাবীতে জিটি রোড অবরোধ করে প্রবল বিক্ষোভ দেখান বিজেপির নেতা কর্মীরা। 

চন্দননগরের বিজেপির কর্মীদের একাংশের দাবী, চন্দননগরের কাউকে প্রার্থী করতে হবে। তারা বিজেপির প্রার্থীকে মানছেন না। রিতিমত তারা হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, দিপাঞ্জন গুহো সেখানে প্রার্থী থাকলে তারা ভোট প্রকৃয়ায় অংশ গ্রহন করবেন না।

No comments:

Post a comment