সরকারি হলফনামা অনুয়ায়ী দু-বছরেই সাংসদ লকেট চ্যাটার্জীর সম্পত্তির পরিমান কয়েক গুন বেড়েছে - breakinggram

Breaking

Thursday, 8 April 2021

সরকারি হলফনামা অনুয়ায়ী দু-বছরেই সাংসদ লকেট চ্যাটার্জীর সম্পত্তির পরিমান কয়েক গুন বেড়েছে


গঙ্গায় স্নান করে প্রচার শেষ করলেন চুঁচুড়ার প্রার্থী লকেট চ্যাটার্জী - নিজস্ব চিত্র


নিজস্ব প্রতিনিধি, হুগলি : পাঁচ বছর নয়। মাত্র দু-বছরেই হুগলির সাংসদ তথা চুঁচুড়ার বিজেপি প্রার্থী লকেট চ্যাটার্জীর সম্পত্তির পরিমান কয়েক গুন বেড়ে যাবার ঘটনায় প্রবল চাপান উতোর শুরু হয়েছে বিজেপির নেতা কর্মীদের মধ্যে। 

গঙ্গা স্নানের পর গঙ্গায় আরতী করে প্রচার শেষ করছেন - নিজস্ব চিত্র


দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, সবকা-সাথ সবকা বিকাশ। কিন্তু, এই অল্প সময়ে নেত্রীর এহেন সম্পত্তি বৃদ্ধির বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক উষ্মা প্রকাশ করেছেন হিন্দু সংগঠন গুলির একাংশের কর্মীরা।  অন্তত এমনটাই খবর মিলেছে বিজেপি ও হিন্দু সংগঠনের নেতা এবং কর্মীদের কাছ থেকে।


সরকারি হলফনামা সুত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৯ সালে হুগলির সাংসদ লকেট চ্যাটার্জীর স্থাবর সম্পত্তির পরিমান ছিল ৮৪ লক্ষ ৬৫ হাজার ৬৫৯ টাকা।

লকেট চ্যাটার্জীর স্বামীর স্থাবর সম্পত্তির পরিমান ছিল ৪৮ লক্ষ ৯০ হাজার ৩৯ টাকা। 

লকেট চ্যাটার্জীর অস্থাবর সম্পত্তির পরিমান ছিল ১কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা। 

তার স্বামীর স্থাবর সম্পত্তির পরিমান ছিল ৫০ লক্ষ টাকা।

২০১৯ সালে লকেট চ্যাটার্জীর হাতে নগত টাকা ছিল ২৭ হাজার ৫৩৪ টাকা।

স্বামীর হাতে নগত টাকা ছিল  ২৫ হাজার টাকা।


২০১৯ সালে লকেট চ্যাটার্জীর ICICI ব্যাঙ্কে ২১ হাজার ৩০৮ টাকা। AXIS ব্যাঙ্কে ছিল ৫ লক্ষ ২৪ হাজার ৬৫৬ টাকা।

তার স্বামীর ছিল ২লক্ষ ৬৫ হাজার ৩৯টাকা।


২০১৯ সালে লকেট চ্যাটার্জীর একটা ফরচুনা গাড়ি ছিল যার দাম ২৩লক্ষ টাকা। একটি হন্ডাই ইঅন গাড়ি যার দাম ৪ লক্ষ টাকা।

স্বামীর ছিল একটি মারুতি সুইফট গাড়ি যার দাম ৪ লক্ষ টাকা।


২০১৯ সালে লকেট চ্যাটার্জীর ৫০০গ্রাম সোনা ছিল।


২০১৯ সালে লকেট চ্যাটার্জীর SBI অ্যাকাউন্টে টাকা ছিল ১লক্ষ ২৪হাজার ২২৯টা।


২০২১ সালে SBI  অ্যাকাউন্টে রয়েছে ৩২লক্ষ ৬হাজার ১৭৭টাকা।


২০১৯ সালে লকেট চ্যাটার্জীর SBI মিউচুয়াল ফান্ডে ছিল ১১লক্ষ ৪০হাজার ৩২৭টাকা।


স্বামীর ছিল ২০লক্ষ টাকাটাকা।


২০২১ সালে লকেটের নতুন মিউচুয়াল ফান্ড ৩২লক্ষ ২৩হাজার ২৪৩ টাকা। 


২০২১ সালে লকেট চ্যাটার্জীর স্বামীর রয়েছে ৫১লক্ষ টাকা।



২০২১ সালে লকেট চ্যাটার্জীর হাতে নগত টাকা রয়েছে ৩৩হাজার ৪৫২টাকা।

স্বামীর হাতে নগত টাকা হয়েছে ২৭হাজার টাকা।


২০২১ সালে লকেট চ্যাটার্জীর স্থাবর সম্পত্তির।পরিমান ১কোটি ৬৯লক্ষ ৬৬হাজার ৭৫টাকা।

তার স্বামীর স্থাবর সম্পত্তির পরিমান ৭৭লক্ষ ৫হাজার ৮৩৬টাকা। 

২০২১ সালে লকেট চ্যাটার্জীর অস্থাবর সম্পত্তির পরিমান ১কোটি ৭৯লক্ষ টাকা।

তার স্বামীর ২৫লক্ষ টাকা। 


২০২১ সালে HDFC দুটো অ্যাকাউন্টের মধ্যে একটিতে রয়েছে ২৩লক্ষ ৭৭৪টাকা। অপরটিতে রয়েছে ৪৬লক্ষ ৭হাজার ৬৭৫টাকা। MAX -এ

২০লক্ষ টাকা। 

SBI লাইফে ইনভেষ্টমেন্ট ৩২লক্ষ ২৩হাজার ২৪৩টাকা।

২০১৯ সালে লকেট চ্যাটার্জীর ইনভেষ্টমেন্ট ছিল ১১লক্ষ ৪০হাজার ৩২৭টাকা। এটা শুধু SBI লাইফ ইন্সুরেন্সে ইনভেষ্টমেন্ট ছিল।

২০২১ সালে আরও একটি নতুন SBI লাইফ ইন্সুরেন্স দুটি HDFC মিউচুয়াল ফান্ড সহ MAX লাইফ ইন্সুরেন্স। 

সরকারি হলপনামা অনুয়ায়ী ২০১৯ সালের তুলনায় ২০২১ সালে সাংসদ লকেট চ্যাটার্জীর সম্পত্তির পরিমান কয়েক গুন বৃদ্ধি পেয়েছে।

এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই বিজেপির নেতা কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। বিজেপির একাংশের নেতা কর্মীদের অভিযোগ, এই অল্প সময়ের মধ্যে সম্পত্তি বৃদ্ধি পাওয়ার মূল কারন সম্ভবত নেত্রীর সঙ্গে জমি মাফিয়া ও প্রমোটারদের একাংশের যোগ সাজশ।

যদিও এই প্রসঙ্গে বিজেপির হুগলি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি গৌতম চ্যাটার্জী বলেন, এই সম্পত্তি বৃদ্ধি পাওয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই। জেনে তবেই বলতে পারব।

চুঁচুড়ার বিধায়ক তথা তৃণমূল প্রার্থী অসিত মজুমদার বলেন, এই ব্যাপারে আমি কিছু মন্তব্য করব না। মানুষ সব দেখছে। তারাই বিচার করবেন।

No comments:

Post a comment